প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পে ঠাঁই, আ’লীগ সভাপতির ইটভাটায় বিলীন

কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের বার বার নির্বাচিত সভাপতি ও কয়েকবারের খোকসা উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খানের মালিকানাধীন এস কে ব্রিক্স এ ব্যবহৃত মাটির জন্য উপজেলার ওসমানপুর ইউনিয়নের হিজলাবট মৌজার গড়াই নদীর পাড়ের মাটি ড্রেজার দিয়ে কেটে নেওয়ার ফলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে অসহায় ভুমিহীন মানুষের আবাসস্থলের জন্য নির্মিত হেলালপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পটি আজ বিলীন হওয়ার মুখে। এরই মধ্যে আশ্রয়ণ প্রকল্পের অফিস ও কমিউনিটি ক্লিনিক হিসাবে ব্যবহৃত ভবনটি অর্ধেক নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

খোকসা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশ্রয়ণ প্রকল্পে শীত বস্ত্র বিতরণ করতে গেলে আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খানের মালিকানাধীন এস কে ব্রিক্স কর্তৃক নদী পাড়ের মাটি কেটে নেওয়ায় অভিযোগ দেয় আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসীন্দার।

জানা যায়, গত শুক্রবার (০২ জানুয়ারী ২০২০) বিকালে উপজেলা নির্বাহি অফিসার মৌসুমী জেরীন কান্তা আশ্রয়ন প্রকল্পের বসবাসকারীদের জন্য শীত নিবারনে কম্বল বিতরণ করতে আসলে প্রকল্পের বাসীন্দাদের  তোপের মুখে পড়েন।

খোকসা আশ্রয়ণ প্রকল্প
আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দাদের মাঝে ইউএনও। ছবি; আমাদের বাণী

আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসীন্দারা সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ (উপজেলা নির্বাহী অফিসার) কে কাছে পেয়ে অভিযোগ করে বলেন, সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের বাসস্থান নির্মাণ করে দিয়েছেন। আজ তার দলের সভাপতি সদর উদ্দিন খান তার ইট ভাটার মাটির জন্য গড়াই নদীর পাশে আশ্রয়ণ প্রকল্পের নিচের মাটি ড্রেজার দিয়ে তুলে নিয়ে আজ আমাদের নদী ভাঙ্গনের মধ্যে ফেলে দিয়েছে। আমাদের বিশুদ্ধ পানি ও জলের টিউবয়েলটি আজ গড়াই নদী ভাঙ্গনে বিলিন হয়ে গেছে। অভিযোগের সত্যতা উপজেলা নির্বাহি অফিসার সরেজমিনে প্রদক্ষিণ করেন। পরে তাড়াহুড়া করে তিনি ঘটনাস্থল থেকে চলে আসেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,  ৩০ জন ভূমীহীন পরিবারের আশ্রয়স্থান নির্মানে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্পের আওতায় গড়াই নদীর পাড়ে আশ্রয়ণ প্রকল্পে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই প্রকল্পের ২০০ গজ পাশেই কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খানের মালিকানাধীন ইট ভাটা এস কে ব্রিক্স। নদীর মাটিই এই ইট ভাটার প্রধান কাঁচামাল। দীর্ঘদিন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পরপর তিন বার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান থাকায় তাঁর এই ইট ভাটা নিয়ে মুখ খোলার সাহস কারও নেই। নিরবে নিভৃতে সহ্য করা ছাড়া তাদের আর কিছু করার নেই। এক্ষেত্রে প্রশাসন ও নিশ্চুপ।

খোকসা আশ্রয়ণ প্রকল্প
ভাঙ্গন কবলিত এলাকা। ছবি; আমাদের বাণী

নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রকল্পের একাধীক বাসীন্দা অভিযোগ করে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের এখানে আশ্রয় দিলেন আর তাঁর নেতা (জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি) আমাদেরকে এখান থেকে উচ্ছেদ করছেন। আশ্রয়ণ প্রকল্পের পাশ থেকে নদীর মাটি কেটে নিলে নিশ্চিত ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে যাবে জেনেও প্রশাসন এই ইট ভাটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না। আমরা এর প্রতিকার কোথাও পাব না জানি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলা আওয়ামীলীগের এক শীর্ষ নেতা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি নির্দেশক্রমে নির্মিত এই প্রকল্প এর পাশে ইট ভাটার জন্য ভাঙ্গনে প্রকল্পটি আজ বিলীনের মুখে। আমার বোধগম্য নয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ক্রমের এই প্রকল্প একজন সিনিয়র নেতার কারণে বিলীন হয়ে যাবে। আমরা উর্দ্ধোধন কর্তৃপক্ষের যথাযথ পদক্ষেপ কামনা করছি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী জেরীন কান্তা’র মুঠোফোনে পাওয়া না গেলেও গতকাল (শুক্রবার) সন্ধায় তিনি ফেসবুকে লেখেন, হেলালপুর আশ্রয়ণ ভাঙনের কবলে। মান্যবর জেলা প্রশাসক স্যারের নির্দেশনা অনুসারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহি প্রোকৌশলিকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। মাননীয় সংসদ সদস্যসহ সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তর ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গসহ সকল খোকসাবাসীর সহযোগীতা ও দোয়া কামনা করছি।

এ বিষয়ে জানতে কুষ্টিয়া জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহি প্রকৌশলী পীযুষ কৃষ্ণ কুন্ডুর মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

About আমাদের বাণী

Check Also

গাজায় ইসরাইলের আগ্রাসন, নিহত বেড়ে ১৪৩

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় আজ শনিবার সকালেও বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। গাজা থেকে হামাসও ইসরায়েলে রকেট …