একমাত্র সমাধান লকডাউন: হাইকোর্ট

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঢাকা;  বিশ্বব্যাপী দাবানলের মত ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত পাঁচজন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯ জন। সংক্রমিত হয়েছেন চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীও। এই প্রতিকূল অবস্থায় করোনা প্রতিরোধের একমাত্র সমাধান দেশ ‘লকডাউন’ করা বলে মতামত দিয়েছেন হাইকোর্ট।

একই সাথে দেশে করোনাভাইরাস নিরোধে বিভিন্ন হাসপাতালে আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের কেন জাতীয় বীরের মর্যাদা দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়েও রুল জারি করেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ স্বপ্রণোদিত হয়ে এ রুল জারি করেন। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল প্রতিকার চাকমা আদালতের রুল জারির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সরকারের সংশ্লিষ্টদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আহূত পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সরকারের পক্ষ থেকে যে নির্দেশনা আসবে তা মানতে এবং আস্থা রাখতেও বলেছেন হাইকোর্ট।

সারা দেশে করোনাভাইরাস পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের নির্দেশনা চেয়ে করা এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে আজ বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি আশরাফুল কামাল ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের বেঞ্চ এ পর্যবেক্ষণ দেন।

রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার হুমায়ূন কবির পল্লব জানান, আদালত আমাদের রিট আবেদন নিষ্পত্তি করে বলেছেন, ‘করোনাভাইরাস জাতীয় শত্রু। করোনা মোকাবিলায় দলমত-নির্বিশেষে এক হয়ে কাজ করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের সময় দলমত-নির্বিশেষে যেমন সকালে একসঙ্গে ঝাপিয়ে পড়েছিল এখনও সেভাবে ঝাপিয়ে পড়তে হবে। প্রধানমন্ত্রী ও তার সরকারের ওপর আস্থা রাখতে হবে। যেসব নির্দেশনা দেবে তা মেনে চলতে হবে।’

ব্যারিস্টার হুমায়ূন জানান, আদালত আরও বলেছেন, ‘তাইওয়ান চীনের পাশের দেশ হওয়া সত্ত্বেও তারা কীভাবে করোনা মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছে সেই মডেলটি অনুসরণ করতে হবে। করোনাভাইরাস একটি বৈশ্বিক সমস্যা। যেহেতু এখনও প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি তাই এর একমাত্র সঠিক সমাধান হিসেবে পুরো দেশে লকডাউন করা উচিৎ।’

এ পর্যবেক্ষণের পর রিটটি নিষ্পত্তি করে দেন আদালত। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার হুমায়ন কবির পল্লব। এর আগে করোনা পরীক্ষার জন্য বিশেষ ল্যাব স্থাপনের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে গত ১৮ মার্চ রিটটি দায়ের করেছিলেন তিনি।

উল্লেখ্য, দেশে করোনাভাইরাসে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এতে করে মৃতের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো পাঁচজনে। আর নতুন করে কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। গতকাল পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছিলো ৩৯ জনে। এছাড়া সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭ জন।

আজ  বুধবার (২৫ মার্চ ২০২০) বেলা ১২টা ১০ মিনিটে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান।

সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন কোনো রোগী আক্রান্ত হয়নি। তবে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার বয়স (৬৫), পুরুষ। তিনি বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন। গ্রামের একটি হাসপাতালে তিনি চিকিৎসা নিয়েছেন। সেখান থেকে তাকে ঢাকা আনা হয়েছিলো। বুধবার সকালে তার মৃত্যু হয়েছে।

আমাদের বাণী ডট কম/২৫ মার্চ ২০২০/সিসিপি

About আমাদের বাণী

Check Also

গাজায় ইসরাইলের আগ্রাসন, নিহত বেড়ে ১৪৩

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় আজ শনিবার সকালেও বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। গাজা থেকে হামাসও ইসরায়েলে রকেট …